মানুষ নিজের ভোট নিজে দিতে পারলে উপনির্বাচনে চার আসনেই বিজেপির জামানত জব্দ হবে। উপনির্বাচনই দেখিয়ে দেবে, ২৩-এ ত্রিপুরায় কারা ক্ষমতায় আসতে চলেছে। বিজেপি কুশাসন রুখে দেবেন মানুষ। ত্রিপুরা থেকে হুঙ্কার ছাড়লেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

অভিষেকের হুশিয়ারি, ত্রিপুরার মানুষের জন্য প্রথমে বাম সরকার, পরে বিজেপি কোনও কাজ করেনি। সাধারণ মানুষকে অবহেলা-বঞ্চনার মধ্যে ঠেলে দিয়েছে। ত্রিপুরার শিক্ষাব্যবস্থা ভুলুণ্ঠিত। রাজ্যের কোনও বড় হাসপাতাল নেই। চিকিৎসা করাতে হলে কলকাতায় ছুটে যেতে হয় এ রাজ্যের মানুষকে। এটা চলতে পারে না। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ দরকার। এই সরকারের পরিবর্তন দরকার। অভিষেকের কথায়, ২৩ শে জুন মানুষ বুঝিয়ে দেবেন বিজেপির ভবিষ্যত কী।

এদিনের জনসভা থেকে অভিষেকের বার্তা, বাংলার মতো ত্রিপুরাকেও সুন্দর করে সাজিয়ে তুলতে হবে। এ রাজ্যে ডবল ইঞ্জিন সরকার আসলে মানুষের উপকার নয়, সর্বনাশ করছে। মানিক সরকার রাজ্যটাকে শেষ করে দিয়েছেন। গত ৪ বছরে বাকি সর্বনাশ করেছে বিজেপি। এখন রাজ্যটা চলছে দিল্লি থেকে। ত্রিপুরার চালাবেন এখানকার মানুষ। উত্তর-পূর্বের সবথেকে বেশি হিংসার ঘটনা ত্রিপুরায়। একমাত্র তৃণমূল কংগ্রেসই পারে, ত্রিপুরায় সুশাসন আনতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *