২১ বছর বয়সি এক আদিবাসী মহিলাকে মারধর করে, নগ্ন করে গ্রামে ঘোরানোর অভিযোগ উঠেছে তাঁর স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে।

সেই চরম অমানবিক ঘটনার ভিডিয়ো বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। এই ঘটনায় রাজস্থানে মহিলাদের সম্মান এবং নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি নেতৃত্ব। যদিও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করার আশ্বাস দিয়েছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট।

পুলিশ সূত্রে খবর, রাজস্থানের প্রতাপগঢ়ের বাসিন্দা, ২১ বছর বয়সি এক আদিবাসী মহিলাকে মারধর করে, নগ্ন করে গ্রামে ঘোরানোর অভিযোগ উঠেছে তাঁর স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। অন্য এক পুরুষের সঙ্গে বিবাহ-বহির্ভুত সম্পর্ক থাকার অভিযোগেই ওই মহিলাকে এভাবে নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ। স্থানীয় পুলিশ আধিকারিক জানান, এই ঘটনায় ইতিমধ্যে ৩ জনকে আটক করা হয়েছে এবং কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এসপি অমিত কুমার জানান, প্রতাপগঢ়ে এক মহিলাকে নগ্ন করে হাঁটানোর ঘটনায় ৬ সদস্যের একটি দল গঠন করা হয়েছে। ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।

ঘটনার তীব্র নিন্দা করে বৃহস্পতিবার গভীর রাতেই টুইট করেছেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। টুইটারে তিনি লিখেছেন, প্রতাপগঢ় জেলায় এক মহিলাকে তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজন নগ্ন করে হাঁটানো হয়েছে। এডিজি-কে ঘটনাস্থলে পৌঁছনোর নির্দেশ দিয়েছেন ডিজিপি। সভ্য সমাজে এই ধরনের অপরাধের কোনও জায়গা নেই। যত দ্রুত সম্ভব এই অপরাধীদের গ্রেফতার করা হবে এবং শাস্তি দেওয়া হবে।

তবে কংগ্রেস শাসিত রাজ্যে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিজেপি সভাপতি জে.পি নাড্ডা। গেহলটের রাজ্যে মহিলাদের সুরক্ষা সম্পূর্ণভাবে উপেক্ষিত এবং রাজস্থানবাসীর এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নেওয়া উচিত বলে জানিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *