দীর্ঘদিন সম্পর্কে থাকার পর বিয়ে করতে চেয়েছিলেন প্রেমিকা। কিন্তু রাজি ছিলেন না প্রেমিক। বিয়ে করার প্রস্তাবে বিরক্ত হয়ে অবশেষে প্রেমিকাকে খুন করে ফেললেন ওই ব্যক্তি। প্রমাণ লোপাটের চেষ্টায় মৃতদেহ একটি ঝোপের মধ্যে লুকিয়ে ফেলেন সে। মুম্বইয়ের (Mumbai) এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে অভিযুক্তকে।

ঠিক কী ঘটেছিল? জেরায় অভিযুক্ত রাজকুমার বাবুরাম পাল জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন ধরে ৩৫ বছর বয়সি ওই মহিলার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল তার। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরেই বিয়ের জন্য চাপ দিচ্ছিলেন ওই মহিলা। প্রেমিকার থেকে মুক্তি পেতেই তাকে খুন করার সিদ্ধান্ত নেন রাজকুমার। গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে প্রেমিকাকে খুন করেন। তারপর ঝোপের মধ্যে মৃতদেহ লুকিয়ে ফেলে।

খুনের পরেও স্বাভাবিক জীবনযাপন করছিলেন পেশায় নিরাপত্তারক্ষী রাজকুমার। এহেন পরিস্থিতিতে ১২ ফেব্রুয়ারি ওই মহিলার মৃতদেহ খুঁজে পায় পুলিশ। অন্যান্য থানা থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মৃতদেহের পরিচয় জানা যায়। ওই মহিলার মোবাইলও উদ্ধার করে পুলিশ। সেখান থেকে রাজকুমারের সঙ্গে সম্পর্কের কথা জানা যায়।

মোবাইল ফোনের সূত্র ধরেই নতুন করে তদন্ত শুরু করে পুলিশ। অবশেষে মঙ্গলবার গ্রেপ্তার করা হয় রাজকুমারকে। জেরার মুখে অপরাধ স্বীকার করে সে। জানা যায়, অজুহাতে নিজের কর্মস্থলে প্রেমিকাকে ডেকে আনে রাজকুমার। সেখানেই খুন করে পাশের ঝোপে দেহ লুকিয়ে ফেলে। আপাতত পুলিশি হেফাজতে রয়েছে অভিযুক্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *