Thursday, July 7, 2022
Homeদক্ষিণ দিনাজপুরটোটো দৌরাত্ম্যে নাজেহাল শহরবাসী, যানজটের মূল কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে

টোটো দৌরাত্ম্যে নাজেহাল শহরবাসী, যানজটের মূল কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে

জয়দীপ মৈত্র, দক্ষিণ দিনাজপুরঃ- ট্রাফিক আইন ভেঙে ইচ্ছে মত শহরের অলিগলিতে চলাচল করছে টোটো।ট্রাফিক আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ইচ্ছে মতন শহরের অলিগলিতে চলাচল করছে টোটো। সিগন্যাল না দেখিয়েই আচমকা বাঁক নিয়ে নেওয়ার ফলে দুর্ঘটনার পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে প্রায় প্রতিদিনই। অবাধ যাতায়াত চলছেই। অভিযোগ, যাত্রী ছাড়া উদ্দেশ্যহীন ভাবে শহরের একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ঘুরে বেড়াচ্ছে টোটো। ফলে ছোট পরিসরের রাস্তায় সবসময় যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। এছাড়াও রাস্তার যেখানে সেখানে আচমকা দাঁড়িয়ে যাত্রী তোলার ফলেও ব্যাপক যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। সিগন্যাল সম্পর্কে কোনও ধারণাই নেই অনেক টোটো চালকের বলেও অভিযোগ করেছেন বাসিন্দারা।

এছাড়াও প্রয়োজনের তুলনায় টোটো সংখ্যা ব্যাপক পরিমাণে বৃদ্ধি পাওয়ায় সামান্য পথ অতিক্রম করতে অনেক সময় লাগছে। টোটোর দৌরাত্ম্যে দূর্ঘটনা বাড়ছে বলে অভিযোগ। রাস্তার উপর প্রায় অর্ধেকের বেশি জায়গা দখল করে যাত্রী তোলার প্রতিযোগিতায় মেতে ওঠেন টোটো চালকরা। ফলে ব্যাপক যানজট হয় শহরে। যার জেরে সামান্য পথ যেতেই সময় লাগছে অনেকটা। সূত্রের খবর, দিনভর জেলা জুড়ে প্রায় ৮-৯ হাজারের বেশী টোটো চলাচল করে। শহরের এইগুলো টোটো ছাড়াও আশপাশের গ্রামীণ এলাকা থেকেও রোজ কয়েক হাজার টোটো শহরের বুকে দাপিয়ে চলছে বলে বাসিন্দাদের অভিযোগ। ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে শহরে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখার যথেষ্ট উদ্যোগ গ্রহণ করা হলেও টোটো চালকদের উদাসীন মনোভাব এই যানজটের মূল কারণ বলে জানাচ্ছেন অনেকে।

টোটো দৌরাত্ম্যে নাজেহাল শহরবাসী, যানজটের মূল কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে

আরও খবর পড়ুন, আমাদের সঙ্গে থাকুন…..

“গোঠ” কে নিয়ে জড়িয়ে আছে রয়েছে ডুয়ার্স তথা পাহাড়ের বহু মানুষের জীবন যাত্রা

পাঠকের কলমে অজয় রায়

“গোঠ” এই শব্দটি ডুয়ার্স এবং পাহাড়ের একটি পরিচিত শব্দ। “গোঠ” বলতে মূলত বোঝায় গোচারণভূমি / গবাদিপশুর রাখবার স্থান । এই “গোঠ” কে কেন্দ্র করে জড়িয়ে আছে ডুয়ার্সে তথা পাহাড়ের অনেক মানুষের জীবন যাত্রা।পশুপালন এই অঞ্চলের অনেক মানুষের জীবিকা। গরম কালে বা খরার সময় পাহাড়ের সংলগ্ন বা পাহাড়ের পাদদেশ এলাকায় গবাদিপশুর ঘাসের এবং পানীয় জলের অভাব দেখা দিলে এই সেই অঞ্চলের মানুষেরা তাদের স্থায়ী ঘর- বাড়ি ছেড়ে নিচের দিকে চলে আসে যেখানে পশুদের পর্যাপ্ত ঘাস এবং জলের ব্যবস্থা থাকে এবং সেখানে তারা জংগলের কাঠ, লতা -পাতা,বাঁশ ও এক প্রকারের পাহাড়ি লম্বা লম্বা ঘাস দিয়ে তারা নিজের এবং পশুদের থাকবার মতো অস্থায়ী এক ঘর তৈরি করে এটাকেই “গোঠ” বলে। Continue Reading

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

More News

Recent Comments